দাসাশ্রমের মাসিক পত্র

সম্পাদৃক-_-স্রীরামানন্দ চট্টোপাধ্যায় এম্‌ এ.

চতুর্থ বর্ষ--চতুর্থ ভাগ

কলিকাতা

২০৮২ কর্ণওয়ালিস্‌ হট হইতে বকা হাস দ্বারা প্রকাশিত ডি

সুচী।

বিষয় . লেখকের নাম পৃষ্ঠা অস্ফুট ভাষা গ্রমধনাথ চট্টোপাধ্যার এম্‌ এ, অনন্বর সম্পাদক | ১৭০ অগ্নি পরীক্ষ! শ্রীজগদীশচন্ত্র বসু বি এস্‌, সি, (লগ্ন) ২৫৪ অমরত্ব পুনর্জন্ম প্ীদীতানাথ দত্ত ৫৭৯, ৫৯৮ অবসর প্ীদীনেশচন্দ্র সেন ৬৮৯ আমাদের পারিবারিক অবস্থা শ্রীমবিনাশচন্ত্র দাস এম্‌, এ, বি, এল, ৪৮ আমার পশ্চিম ভ্রমণ .. শ্রীরাজনারায়ণ বস্থ ২৮৯ আসাম ভ্রমণ শ্রীজলধয় সেন ৩৯৯) ৪৪৮ ইতরপ্রাণীর শেষ গতি পখিজেন্্রনাথ বসু ৭৭ ইংলতীয় সভ্যতা শ্রপূর্ণান্দ চট্টোপাধ্যায় ডি এস্‌, সি, (এডিন) ১৮২ ইংরাজ সমাজ শ্রীদেবেন্্রনাথ মল্লিক বি, এ, ( ক্যান্বিজ ) ২৯৫ ইংলণ্ডে নিরামিষ ভোজন চলে কি না, ্রীনগেন্চন্্র মি ৪৬ ইছামতী (কবিত1) শ্রীফকিরচন্ত্র সাধুখ। ৫২২ উপনিষদের ধর্ম দার্শনিক মত শ্রীসীভানাথ দত্ত তর উপনিবেশ স্থাপন শ্রুরাজকুষার দাস এম্‌. এ, | ২৭৭ উষ্ধা (কবিত1) শ্রন্থিজেন্দ্রলাল রায় এম্‌, এ, 8৬৭ একটা কৈফিয়ত ্রীপ্রমথনাথ চট্টোপাধ্যায় এম, ৬ও এলাভাবাদে শ্রীজলধর সেন ১৫২ এসিয়। পৃথিবীর ধর ভদেবেজ্নাথ বন এম্‌, এড ১৬৪ কছ্টাদায় (গল্প) ্রীন্ৃতাগোপাল করিবত্বা [৩৭৮ কীটুসের কবিতা প্রীহেমেম্গ্রসাদ ঘোষ | ৩৮ কবীর্তন (কবিত1) এছ্িজেজরলাল রায় এম্‌, এ, 8৭১ কুম্কার . প্রবিজয়চজ মহূমদার বি, এ, ১৪৮ কেরল ীছূ্গাচরণ রক্ষিত ৪১৯ ৬২৫ কোম্পানী বাহাছুয়ের মনা তৈল বিজয়... .. ৪২৩ খগুগিকি ঞযোগেশচন্ রায় এম্‌, এ, | ৪৩১

8/৬

বিষয় লেখকের নাম পৃষ্টা খাদ্য শ্ীগোবিন্দনাথ গুহ এম্‌, এ, ১৫৮ " খু জীহানআলি শশ্ীচরণ চক্রবর্তী ৪৩৫, ৬৩২ গীতোক্ত অবতার তত্ব পপ্রতুলচন্তর সোম ৫৫৫ ছেলেটা যেন কান্তিক শ্রীদেবেন্ত্রনাথ বন্থ এম্‌, & ৪৯৩ জগদ্রাম রায় শ্রীবলরাম বন্দোপাধ্যায় ৩৩৭, ৩৯৪ জিজ্ঞাস! শ্রীঅধোরনাথ চট্টোপাধ্যান ১৪৫ নিজ্ঞাসার উত্তর শ্রীঅচ্যুতচরণ চৌধুরী ২১০ জীবন চরিত শীঅপূর্বাচন্দ্র দত্ত বি, এ, (কেন্বিজ) জীবনোপায় (গলপ) ত্র ১৯১১ ২৫৬, ৩২২ জ্যোতিষের পারিভাষিক শব শ্রীমাধবচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় ৩৭১ জ্ঞানবৃক্ষ তাছার একটা সুফল শ্রীদেবেন্্রনাথ বস্থু এম্‌, এ, ৪৯৪ তুকারাম শ্যোগীন্ত্রনাথ বস ২৮, ৫৭, ১১৩) ১৮৭) ২৪৪, ২৯৪, ৪১৫, ৪৮৯, ৬৬৬

দাপাশ্রম ৫৫

দাপপাশ্রমের মাসিক .কাধ্বিবরণ ৫৩, ১৯, ১৭১, ২২৮, ২৮৫, ৩৫২, ৪১২, ৪৭৫, ৫৩২, ৫৮৮) ৬৪৪) ৬৯৩

দানব বামন শ্রীযোগীন্দ্রনাথ সরকার ৩৩ ছইটা পক্ষী সম্পাদক

দেবেজ্্রনাথ ঠাকুরের জীবনী ৬৪৭ দেশীয় ইউরোপীয় সঙ্গীত শ্রীউপেন্ত্রকিশোর রাঁয় চৌধুরী বি, এ, ১৩৪ নির্বাসিত! _ শ্রীবিনয়কুমার ধর পঞ্চ মহা যজ্ঞ শ্রীসঘোরনাথ চট্টে।পাধ্যায় ২৩৬ পারিবারিক আমোদ প্রমোদ শ্রীঅযূতলাল গুপু ৪৭ পিতৃতৃমি দর্শন শ্ীরাজনারায়ণ বনু ২৩৩ পৃথিবীর সেবক দল শ্রী ন্তীচরণ বন্দ্যোপাধ্যায় ২২৫ পৃথিবীর বয়স শ্রামেন্রস্ুলর জিবেদী এম্‌, এ, ৪৫৩ প্রতিশোধ জীষতীক্্রমোহন বসু ৯৫

প্রছা মিশ্রের কফটচৈত্যন্টোদয়াবলী প্রীঅচ্যুতচরণ চৌধুরী ৪৭২ খড়িগচজ ীহেমেত্রপ্রসাদ ঘোষ ৬৮২) ৩৮৮, ৫৪৯) ৬৫৬

ত/০

বিষয় লেখকের.নাম প্‌! বালুকাময় জলশেধকের উপযোগীতা শ্রীধোগেশচন্ত্র রায় এম্‌, এ, ৩৫৯ বাল্যসখী (কবিতা) শ্রীযোগীন্ত্রনাথ বন্থ বি, এ, ৩৬৮ বর্ধাও দিবার মৃত্যু (কবিতা) শ্রীবিনয়কুমার ধর ৪৩৯ বাঙ্গালী শ্রঅবিনাশচন্ত্র দান এম্‌, এ, ১৯৬ বাঙ্গাল! ভাষ| বাঙ্গাল। সাহিত্য শ্রঅবিনাশচন্দ্র দাস এম্‌, এ, ৩*২ বাদ প্রতিবাদ প্রীঅচ্যুতচরণ চৌধুরী | শ্রীঅঘোরনাথ চট্টোপাধ্যায় ৩১৭

বিশুদ্ধ জলের আবস্তকত। শ্রীধোগেশচন্দ্র রায় এম$ এ, ১২৯ বিশ্ববিদ্যালয়ের রজ সম্পাদক ২৬৭ ব্রদ্মরমণী প্রীদীনেন্দ্রকুমার রায় ৫১৬ ভাগীরথীর উৎস সন্ধানে শ্রাগদীশচন্দ্র বস্থু বি, এস্‌, সি, (লগুন) ১৭৭ মাতৃক্সেহ (কবিতা) শ্রীষোগীন্দত্রনাথ বসু বি, এ, ৯৩ মহর্ষি দেবেন্ত্রনাথি ঠাকুর শররাজনারায়ণ বস্থু ৫৯১ রাম প্রসাদ সেন শ্রীদীনেশচন্ত্র সেন বি, এ, ৪৯৬ রামপ্রসাদ বৈদ্য কি কারস্থ প্ররসিকচন্জর বন্থু ৬৮১ লাভেরিয়ে শ্রমুরলীধর রায়চৌধুরী এম্‌, এ, ১৬ লেবেরিয়ে জীমাববচন্ত্র চট্টোপাধ্যায় ৫৬৮ বিবিধ গ্রদঙ্গ সম্পাদক ২১৫ শমন-দমন-বিধি গ্রহ্ন্থরীমোহন দাস এস্‌, বি, ১৪ শাস্তি নিকেতন শ্রক্ষিভীন্্রনাথ ঠাকুর বি, এ, ৫৪৬ শুগৌরাঙ্গের শ্রীহট্রাগমন শ্রাীঅচ্যুতচরণ চৌধুরী ৫২৪ শ্রীগৌরাঙ্গ তৃকারাম নসখারাম গণেশ দেউস্বর ৬৯৯ সর্পবিষ যোগেশচন্জ্ রায় এম্‌, এ, ৫৯২ সম্পাদকের নিবেদন ২৩২ সেবা সংবাদ শ্ীশ্তামলাল ঘোষ ১১২, ৬৪১ মৌন্দর্ধ্য-বোধ ট্রতৃব্রঙ্গধর রায়চৌধুরী এষ্‌, এ, ৪৪ স্বরলিপি প্ীউপেক্ কিশোর বায়চৌধুরী বি, এ, ৭৩ সংক্ষিপ্ত সমালোচনা ৩৫৫, ১৪২ সুখের নদী (কবিতা) . প্রীদিজেন্্রলাল রায় এম্‌, এ, ৩৭৭

বিষয়

১৬) মেকালের পাঠশাল! মেকালের গাঠশাল! হুর্ষোর তাপ পরমাযু সংসার ধর্ম হরিদাস

1০.

লেখকের নাম পৃষ্ঠা ্রীশঃচ্ন্ত্র রায়চৌধুরী এম্‌, এ, বি, এল ৩৮ং শরীঅধিনাশচন্ত্র দান এম্‌. এ, ৪8৪ ্রীরাপবিারী সেন ৫৬, ্রক্কালীগ্রমনন চট্টরাজ এম্‌, এ) ৪৮৬ ্রণীরালাল হালদার এম্‌, এ, ৫৪,

শ্রীমচতচরণ চৌধুরী ১০৪) ৬৭৬

অতিথি (বিজ) ১০৪০৪ সুখ" গাঁ যা আমৃত্ধে খরল. ভ্ীবিজচজ মভুমদায় বিশ্ঙ জআয়াদের বস প্ীবেবেজ্রনাথ বনু এষ. আধুনিক প্-কাততন প্রসতোল্ত নাথ বু

আমানের উন্নতি : বক.

আমাদের দরিস্রতা (জবৃগাষধর রায়চৌনুরী আবুবোদস্-বরগ্র বিউবনিক প্লেগু বম্পাষক এসিক্নাটিক্ব মোসাইটীর

পত্রিকা শ্রীবিজ়চজ ম্ুমধার,

একটা কথা. ্রনত্যকাষ,

একটা কথা--চনডিজ্রানূযান বি)

একটা রৌপ্য মুত্রায় বররন জীবন-চর়িত পীপ্রতাভকুমার সুখোপাব্যান কবিতাহ্বন্মরী (পদ) ভীদীনেজকুষাক় রায় কলিকাত। বিশ্ববিদ্যালয়

বাঙ্গাল! ভাষা শ্রীদেবেজনাখ বন্ধ এয. কের ভীছর্গাচরণ ওক্ষিততা. কাষন। (পদ্দা) প্র হা বনি গীতোক্ক অবতায় তত্ব. সনবন্ধে হুই একটা কথ? প্রীবলকাষ

গরিধ সেবক গিিশচন্্র ঘোষ াোমবিহারী খোষ

গীতোক অবতার তত্ব পরপরতুলর্জ বোম গ্রন্থ সমালোচনা

(রসলীলা) রশ ছা চিআ.. প্রীচাকুষারযখোগয অগভাম রায় প্ীবলযাঘ, নযোপাসা . জাতীয় জীবন না শাল! উতর ফিক. বরণার পাশে উরবেজ কুয়া! ইটা যা

৫৭১২৬ রঃ ৪১২৩৫০৭৫৬১৩,

রি ৪১৭77 ৪৫. বর

ণউী ৪৪৩ ৯০২২৪

5০ ১৪. *৯ত ইক রি ন্‌ ৯৭ টি ১88৮ ২৪৩ জর দাস « স্ ৮** ১৮ বিঃ.

রি 1 ০, নাথ চ্ধ সর ২৮ |

রর রর উত্তর হু ৬১:০8 শ্তিবাজ, |

০০৯ ৩৩৬: প্রতিবাদের উত্তর ভ্ীঅধোরনাখ চট্টোপাধ্যায় ২8০ ০৩২ পো মষ্টির শ্রীজলধয় সেনা ১১১৮ ৫২৭ বিন | ভীহেমেনর প্রসাদ ঘোষ ৮৮ ৬১৩৯,২২৮ | ৩১৩) ৪১৯ ৫৬

থারুণী গান ভীঅচুতচরগ চৌধুরী 8৮ বিবিধ প্রস্ষ : জীধীনেজকুষায রায় ১১ ৪২৬ বিনিময়. ঠং জ্রীকালীগ্রসর লেন গুপ্ত »*৯ ৬৫৩ বরফ উসত্যেম্্রনাথ বনু [০৪৩৩ ভারতীয় বক্গবিদ্যা ভীপ্যারীযোহছন দানা ০৮ 8৭৬২৭ সুললষান বৈফব কৰি প্ঘচ্যুতচরণ চোখা... ২৯৫: মহাত্মা রামমোহন রায় | রামজয় বটব্যাল শ্রীজযোরনাথ চট্টোপাধ্যায় .. ২২৫ অছাবাআ। ভীপ্রভাতকৃষার মুখোপাধযার . ... ৪৮২ মিলনাননা : ্রীপীলেন্্রকুষার রা শত ৬৪৮ স্পিন ভীদীনেজকুষার রায়... ,.. ৫২৫ যাধবিক! শ্রপ্রতাতকুষার হুখোপাধ্যার ৮. ৬০৮ রাম প্রসাদ সেনের কথা আীদীনেশচগ্র সেম ১৮:8১. রাম শা্জী শ্রীসখারায গণেশ মেউস্কর. ... ৩৯১ শিশু এবং পি শৌনা শ্রীশশাফমোহন লেন বি-এ ০১৪ ১২৩ | শেষ গন সুখোপাধ্যা় "৩১৬

অন্ত বিএ কেছিজ। ১:১০ ১১৬ ২৫৫৩৩২৬ |

সনগরীনন্দ চরিত | মৌ দের গড আর গা, শত ১১৩

[নী রি লী, 9.৭ তল ১৮ রা: ধা বসন নী রি 171 টা ২8. য় রি সীরর রা ছি: :

( 54807 7

৫০0077

উজার

আধুনিক সুত্র কাতন। (81০0610 0০৮00 501010105 ) (৩) মিশ্রণ (00775)1

নান! জাতীর তুলা একত্র মিশ্রণ করাকে 011:106 বলে। ইহাই হুতার কারখানায় প্রথম প্রধান কার্ধ্য; ইহা হস্তদ্বারাই সম্পন্ন হইয়] থাকে। সন্তাক়্ কাতনকার্ধ্য সুচারুরূপে সম্পন্ন করাই মিশ্রণের প্রধান উদ্দেশ্ত পূর্বেই বল! হইয়াছে যে, একই বৃক্ষের একই ফল হইতে এক রকমের তুল! পাওয়া কঠিন; তারগুলি প্রায়ই ছোট বড় হুইয়। থাঁকে। এই সকল তার একত্র ন! মিশাইলে কাতনকাধ্য কঠিন হইয়া পড়ে এবং একজ মিশ্রণ ব্যতীত নানা জাতীয় তুল। হইতে সত কাটা এক রকম অসম্ভব। এই | সকল কারণে মিশ্রণ হৃতারকারখানায় একটি প্রধান কার্য্য।

নান! জাতীয় তুলা একত্র মিশাইলে আরে! একটি লাভ এই হয় যে, ইহাতে উত্তম জাতীয় তুলার দর কমান হুইয়! থাকে অধম জাতীয় তুলার উৎকর্ষ সাধন কর। হয়। মনে করুন, খাণ্ডোয়] (05009) তুল হইতে ২* নম্বরের কৃত! অপেক্ষা! মিছ স্তা কাট! কঙ্জিন কিন্তু ইহা অপেক্ষা! উত্তম হিঙ্গনঘাটের তুল। হইতে ২২ কিন্বা ২৪ নম্বরের সুতা কাটিলে তাহ। ক্ষিচু মহার্থ হইয়! পড়ে; সে জন্য দশ কিন্বা বার গাঠ থাণ্োয়াতে চারি পাচ গাঠ হিঙ্গনঘাঁট মিশাইলে, উক্ত নম্বরের সুতা অপেক্ষাকৃত মস্ত! দরে নুটারুর্ূপে কাটা যাইতে পারে।

চারি পাঁচ জাতীয় তুলা একত্র মিশাইতে হইলে, এক জাতীয় তুলায় কতকগুলি গাঁঠ খুলিয়া তাহাদের তুলা হত্তের দ্বারা পতল! করিয়া মাটিতে বিছাইতে হয়। এক জাতীয় কতক তুলা বিছান হইলে, অপর জাতীয়

৬১৬ দাী [হম ভাগ ১২প লংখ্যা।

কতকগুলি গাঁট খুলিয়া তাহার তুল! পুর্ব তুলার উপরে বিছাইতে হয়; তাহার উপর অন্তান্ত জাতীয় তুলা পর্য্যায়ক্রমে বিছাইতে হয়। এইরূপ যেষে তুল! মিশ্রণে দেওয়! হইবে, তাহ! দেওয়া! হইলে মিশ্রণের এক [.2701 বা স্তর (চলিত কথায় “থর”) প্রস্তত হয়। এইরূপে এক স্তরের পর আর এক স্তর, তাহার উপর আর এক স্তর করিয়া যত বড়

মিশ্রণ কর! দরকার, তত বড় কর। হয়। নিয়লিখিত মিশ্রণের তাল্লিকা হইতে পাঠকবর্গ মিশ্রণ কিরূপে কর! হয়

তাহ! কতকটা অনুমান করিতে পারিবেন-_-

ভুল৷

ভুলাই হিঙ্গনঘাট ২-২-২-২-২ গাড়ারবার! ৬-৬-৬-৬-৬ (05091%912) মকাপুর ৩-৩-৩-৩৩ খাোয়। ৪-৪-৪-৪-৪

(71)000%2)

এই মিশ্রণ চারি জাতীয় তুলার, স্তরে পূর্ণ করিতে হইবে। প্রথমে হিঙ্গনথাট তুলার ছুইটি গাঁট খুলিয়!, উত্তমরূপে তুলার চাঙগড় 1 ভাঙ্গিয়! মিক্সিং ঘরের ফোরেতে গাৎল! করিয়া বিছাইতে হইবে; তাছার উপর গাড়রবার! টাংর! খুলিয়! পাৎল1 করিয়া বিছাইতে হইবে; তাহার উপর মাকাপুরের গাঁঠ খুলিয়া চাঙ্গড় ভাঙ্গিয়া পাতলা করিয়া! বিছাইতে হইবে) তাহার উপর খাণ্ডোক়্ার গাঠ সেইরূপে বিছাইঞে এক স্তর মিশ্রণ পুর! সুইবে। এই প্রথম স্তরের উপর পূর্বের ন্যায় দ্বিতীয়, দ্বিতীক্বের টি

% (01000165560 10785 016 00600 216 0০110001211 1001 25 [01551 1 (7৩ "//65(617) 61591061770169, 1 তুল প্রেম করিয়া! গাঁট বাধিবার সময় তাহ! প্রায়ই চাঙ্গড় ব| জমাট বাঁধিয়া যায়। সচরাচয় হস্ত ঘারাই চাঙ্গড় ভাঙগ| হইয়। থাকে। বড় বড় মিন 9816-07825178 88005. বাধহার করা হইয়। থাকে |

ভিলেছ। ১৮৯৮] আধুনিক সুত্র কাঁতন ৬১৭

ভূতীর়, তৃত্তীয়ের উপর চতুর্থ, চতুর্থের উপর পঞ্চম স্তর করিতে হুইবে। এইরূপে পাচ স্তর পূর্ণ হইলে মিশ্রণটি সম্পূর্ণ হইবে। মিশ্রণ পুর্ণ হইলে তাহার এক পার্শ হইতে (10 ০7608] 59০6005) কাটিয়! কাঁটিয়। তুলা ব্যব- হার কর! উচিত, কারণ তাহাতে সকল জাতীয় তুলা সমভাবে আসিবে, উপর হৃইতে লইলে একই জাতীয় তুল! আসিবে

আনেক জাতীয় তুল! একত্র মিশ্রণ করিতে হইলে তুল! বাছাই সম্বন্ধে বিশেষ সাবধান হওয়া! উচিত; যতদূর সম্ভব, নান। জাতীয় তুলার তার দ্বীর্ঘতায় এক রূকম হওয়] উচিত। ছোট তারের তুল! বড় তারের তুলার সহিত একত্র মিশান হইলে কাতন কার্ষ্যে তুলার অত্যন্ত অপচয় হয়। কারণ, যে সকল যন্ত্র দীর্ঘ তুল! ব্যবহারের নিমিত্ত সেট (5০6) কর, তাহাতে ছোট তারের তুল! উত্তমরূপে চলে না, অনেক পড়িয়। যায়; কাজেই তাহার অপচন্ন অপব্যবহার হইয়া থাঁকে। আর যে সকল যন্ত্র ছোট তারের তুল! ব্যবহারের জন্য সেট করা, তাহাতে দীর্ঘ তারের তুল! চাঁলাইলে উহ! রোলারে (£০11) জড়াইয়। যায়, কাজেই অনেক তুল! নষ্ট হইয়? থাকে কাতন কার্ধ্য উত্তমরূপে চালাইতে হইলে ছোট, বড় মাঝারি রকমের তুল! পৃথক্‌ পৃথক্‌ করিয়া ব্যবহার করা উচিত। মোটা হুত! কাটিবার জন্য অনেকেই কাচ.র| * (৮9506) তুলা ব্যবহার করিয়। থাকেন। মিশ্রণের জন্য তুল! বাছাই করিতে যেরূপ সাবধান হওয়| দরকার, সেইরূপ কাঁচ.র! বাছাই করিবার সময়েও সাবধান হওয়া উচিত।

মিশ্রণ একেবারে যত বড় করা যায়, ততই ভাল। কারণ, মিশ্রণ অনেক দিন ধরিয়। ব্যবহৃত হইলে তাহার গুণাগুণ কাতকগণ উত্তমরূপে বুঝিতে পারে এবং তাহাতে তাহাদের কাজে বিশেষ সুবিধা হইয়! থাকে ইহাতে নৃত| রঙ্গে বলে একই রকম হইয়া থাকে, গে অন্ত বাজারে কারখানাধি- কারীদের বিশেষ প্রতিপত্তি পাভ হইয়া থাকে এই হেতু সপ্তাহে সপ্তান্ে বা মাসে মাসে মিশ্রণ বদল না করিয়া একেবারে তিনমাস কিম্বা ছয় মাসের জন্ত মিশ্রণ গ্রস্তত কর! উচিত) তাহাতে সুতার সমতাহেতু বাজারে তাহার বিশেষ আদর হুইয়| থাকে, এবং গ্রাহকগণ নিঃসন্দেহে তাহা ক্রু করিয়? থাকে। সপ্তাহে সপ্তাহে কিন্ব! মাসে মাসে মিশ্রণ বদল করিলে সুত্র কাতনে ঘমত! আদৌ থাকে না) প্রত্যেক মিশ্রণ হইতে প্রস্তত সুতার রঙ্গে কিছ!

পপ এপাশীপাপপাপ পান তিশা?

* যেসকল তু খোনাই, সাফাই ফাই করিবার মময় আবর্জনার সহিত পছ্ধিনা। ঘাস

৬১৮ ... বাসী [৫ম তাঁগ ১২শ সংখ্যা।

বলে কিশ্বা অন্ত কোন না কোন বিষয়ে প্রভেদ হইয়া খাকে। ভাহাতে গ্রাহকগণের মনে সহজেই সন্দেহ জন্মে, কাজেই তাহার! সেইরূপ মাল ক্রয় করিতে পশ্চাত্পদ হয়। তাহাতে কারখানার অধিস্বামীদিগের লাভের পক্ষে বিশেষ ব্যাঘাত জন্মে। ছোট ছোট মিশ্রণ, যতদুর সম্ভব, না করাই ভাল। তবে নেহাত দরকার হইলে করিতেই হন্ন। কিন্তু যখন বাধ্য হইয়া! এরূপ করিতে হইবে, তখন, যতদুর সম্ভব যরিশ্রণটি পূর্ববরূত মিশ্রণের ঠিক অনুরূপ হওয়া উচিত ইহাতে হতার কতকটা সামঞ্জস্ত থাকিবার সম্তাবন। থাকে |

মিশ্রণের উপর কারখানার লাভালাভ নির্ভর করে বলিয়! এই কার্যের ভার উপযুক্তলোকের হাতে রাখা উচিত। কারণ, মিশ্রণে তুল হইলে, পরে তাহা সংশোধন করা ফায় না; তাহাতে কারথানার অত্যন্ত লোকসান হয়। লোক জন দ্বারা উত্তমরূপে স্তর প্রস্তত করাইয়৷ মিশ্রণ করান কিছু শক্ত নহে ; ভবে তুল! বাছাই করাই কঠিন। কোন্‌ কোন্‌ জাতীয় তুলা একত্র মিশাইলে আবশ্যকীয় প্রকারের তা সম্ভার সুন্দররূপে প্রস্তত হইতে পারে, তাহা জানাই কঠিন। বিষয়ে অনেকদিন ধরিয়া মনোযোগ নাদিলে ইহা শিক্ষা! কর! যায় না, আর অনেকে বিষয় শিক্ষা করিতেও পারে না। মিল ম্যানেজারদিগের ভিতরে অনেকে কার্ধ্যে সম্পূর্ণ পটু নহেন | বিশেষতঃ ধাহার। পূর্বে মিকানিক ছিলেন,পরে ম্যানেজার হইয়াছেন তাহাদের ভিতর অনেকেরই পক্ষে প্রথম প্রথম কাধ্য বোঝা কঠিন। অনেক স্থলে দেখ! যার বে, কল কারখানা সকলই স্ুন্দররূপে চলিতেছে, জল, কয়ল!, তেল বা! পরিশ্রম প্রভৃতির কিছুরই অন্তায় খরচ নাই, অথচ কারখানার লাভ হইতেছে না। সেস্থলে মিশ্রণের দিকে দৃষ্টি রাখিলেই লোকসানের কারণ দেখিতে পাওয়া যায়। যাহার] প্রথম হইতে কার্ডিং কিন্বা স্পিনিং কার্ধ্যে ঢুকিন্না থাকেন, তাহাদের পক্ষে বিষয় শিক্ষার অনেকটা সুবিধা থাকে; আর তাহার1 চেষ্টা করিলেই সহজে ইহা বুঝিতে পারেন। অপরের পক্ষে বিষয্কে প্রবেশ করিবার চেষ্টা করায় লাভ নাই, কারণ কাজ না করিলে বা না৷ জানিলে চেষ্&] বিড়ম্বন। মাত্র। অনেক স্থলে দেখা যায়, যিনি মিশ্রণ কার্যে ক্লার্ক থাকেন তিনি কার্যের অনেক বোঝেন, বিশেষতঃ অভ্যান হেতু ভিনি কিসে মিশ্রণের দূর কম বেশি হইবে ভাহ! বহজেই বলিতে, পারেন,। ইহার. উপর কতকট!| মিশ্রণের দবারিত্ব

ভিন, ২৯০৬।] : আধুনিক সুত্র কাতন ৬১৯

থাকে বলিয়! কাঁধে একজন বিচক্ষণ বিশ্বানী লোঁক রাখা দরকার ইহার তুল। বাছাই করিবার ক্ষমতা উত্তমরূপে থাকা! প্রয়োজন; কোন্‌ কোন্‌ প্রকারের তুল। হইতে কি কি প্রকারের সুতা উত্তমরূপে কাট। যাইতে পারে সে জ্ঞান থাকা আবশ্তক। সকল গুণ বাহার নাই, তাহাকে মিশ্রণ কার্য্যে রাখিয়া! কোন লাভ নাই।

কারখানায় কিরূপ সত! কাটা হইবে, তাঁহা স্থির করিয়া, তুল! খরিদ করিবার পরে মিলের অধ্যক্ষদের প্রথম কার্ধ্য, সমস্ত ক্রীত তুলার গুণাগুণ পরীক্ষা করা। এন্ধপ করিলে মিশ্রণের সময় মন্দ গাট সকল ব্যবহার করিবার সম্ভাবনা কম থাকে এবং পুনরার তুল! ক্রয় করিবার সময় এই প্রকারের মন্দ গাট সকলের মার্কান্ুরূপ মার্কাধুক্ত গাট ন৷ ক্রয় করিলেই মন্দ গাট ক্রয়ের সম্ভাবন1 কমিয়। যায়। সচরাচর কোন গাঁটের কিন্ব! বোরার তুল! পরীক্ষা করিতে হইলে তাহার ছুই তিন স্থান হইতে কিছু কিছু তুলা বাহির করিয়া লইয়া! পরস্পর কিন্ত! নমুনার সহিত মিলাইয়। দেখিতে হয়। এই সকল তুলার তার টানিয়। তাহার দীর্ঘত। অন্যান্য গুণ পরীক্ষা করিয়! তুলাগুণিকে ভিন্ন ভিন্ন শ্রেণীতে বিভাগ করিতে হম্স। যে নকল তুল। অপক অবস্থায় বৃক্ষ হইতে উত্পাটিত হইয়! থাকে, তাহার! স্পক্ তুল! হইতে নরম ক্ষীণ হয়, আর তাহাদিগের তারের জোড়েনে সমতা আদৌ থাকে না। যে সকল তৃল| অতিপক অবস্থায় বৃক্ষ হইতে উৎপাটিত হয় তাহাদের তারগুলি প্রায়ই কৌকড়ান কৌকড়ান, এবং অধিক শুঁফতা হেতু কড়া ভঙ্গপ্রবণ হইয়! থাকে; উত্তম তুলার সহিত. সহজে মিশ খাইতে চাহে না, আর উত্বম তুলার সহিত মিশিলেও তাহার গুণ অনেক নষ্ট করিয়। থাকে। যে সকল লোক তুল৷ বাছাই করিয়! থাকেন তাহাদিগের দর্শনশক্তি স্পর্শশক্তি (55051657599 ০৫ €০8০ ) অত্যন্ত তীক্ষ হওয়া দরকার) তুলা বাছাই কার্যে দর্শনশক্তি অপেক্ষ! স্পর্শশক্তি অধিক কাজে লাগিয়! থাকে, জন্ত সতত অভ্যান দ্বার এই শক্তির বৃদ্ধি সাধন আবশ্তক। তুলার বাছাই করিতে তুল হইলে মিশ্রণে নিশ্চয়ই ভুল হইবে এবং তাহাতে কারখানার বিশেষ লোকদান ) সে জন্ত এই সকল কাঁ্ধ্যে বিচক্ষণ বহদরশী লোকের গ্রয্ধোজন। ছুঃখের বিষয় ভারতবর্ষের অনেক মিলের অধিশ্বামিগণ এই কারের দায়িত্ব না বুঁঝয়। অল্প বেতনের লোক নিযুক্ত করিয়! থাকেন; তাহাতে তাহাদের বিশেষ

৬১৬ " সী ; (৫সভাগ্‌, ১২শ নংখা!।

লোকসান হুইয়! থাকে এই ঘোর বিজাতীয় প্রতিযোগিতার দিনে ভারতের সমস্ত মিলঅধিকারীর বিষয়ে বিশেষ সাবধান হুওয়! উচিত। মিশ্রণ পুর! হইলে তাহ। একেবারে ব্যবহার ন| করিয়া কিয়দংশ লইয়! পরীক্ষ/ করিয়া দেখ! উচিত। মিশ্রণ পরীক্ষা করিতে হইলে তাহার কিয়দংশ লইয়! প্রথমে ওজন করিতে হয় তাহার পর, তাহা নানাপ্রকার ধোনাই সাফাইয়ের কলে চালাইতে হয় এবং তাহাতে কত কাচ! নির্গমন অন্তান্তর্ূপ লোকসান হয় তাহ! নোট. করিতে হুয়। তাছার পর তাহাকে কাতন যন্ত্রে চালাইর! দেখিতে হয়। কিরূপ ফল হয়, তাহাও নোট করিতে হয়। এই সকল ফল সন্তোষজনক হইলে সমগ্র মিশ্রিত তুলা ব্যবহার কর1 যাইতে পারে; নচেৎ আবশ্তক মতে পরিবর্তিত করিয়। ভাহ! পুনরার পরীক্ষা ব্যবহার কর! উচিত। (ক্রমশঃ) শ্সত্যেন্ত্রনাথ বন্থু।

নুন্দরীনন্দ চরিত।

তার! ভুবনে ধন্ত দয়ালুর অগ্রগণ্য যারা জীব উদ্ধার কারণ, বিশ্বপ্রেমে ময়হিয়া শুভ উপদেশ দিয়! অগ্ুগ্রহ করেন বর্ষণ ভগবান্‌ বুদ্ধ, কপিলবাস্ত নগরীস্থ বটকাননে অবস্থান করিতেছেন। শাকারাজের পুত্র নন্দ, তাহার সনর্শনের নিমিত্ত থার উপস্থিত হইলেন। নানা কথোপকথনের পর ভগবান্‌ বলিলেন, "বৎস নন্দ! তুমি গ্রব্রজ্যা গ্রহণ কর।” নন্দ বলিলেন, “ভগবন্! প্রব্রজ্যায় পুণ্য লাভ হইলেও উহ! আমার অভিমত নহে) আমি সমুদয় পরিব্রাজকের উপানক হইয়া! সর্ধবিধ উপকার দ্বারা তাহাদের ভিক্ষাবৃত্তির সাহাষ্য করিব” এই কথা বলিয়া রত্বমর় মুকুটে ভগবানের চরণ স্পর্শ করতঃ নন্দ শ্রিয়তগার জন্ত উৎকন্ঠিতচিত্তে গৃহে গমন করিলেন মনোহর উদ্যানে লাবপ্যবতী গ্রেয়সীর সহবাসে কালযাপন করিতে লাগিলেন। মুহূর্তের জন্তও তাহার! পরস্পরের বিরহ সছিতে পারিতেন না1। এক- দিন তগবান্‌, গুণবানেরগ্রতি প্রীতি-নিবন্ধন ছিক্ষুগণেয় সছিত শ্বয়ং নলের ভবনে আগমন করিলেস।

্‌ চিনি ১৮৮৬। ] স্বন্দরনন্দ চরিত ৬২১

নন ভগবানের আগমনে আহলাদিত হুইয়! পাদ -বননাপূর্বক তাহাকে মহামূল্য আসনে উপবেশন করাইলেন এবং পুজা করতঃ বলিলেন, পভগবন্! কোন পুণ্যের পরিণাম; যেহেতু ভগবান্‌ অস্থগ্রহ করিয়া! স্বয়ং দর্শন দিলেন। মহাত্মাদের ম্মরণ, দর্শন উপদেশ শ্রবণ মহাফলজনক। আহা! এই বিশ্বপ্রেমিক মহাত্মার দেহজ্যোতিঃ সন্দর্শনে কাহার না হৃদয় বিকসিত হয়! মহাত্মাদের দর্শন, দান অপেক্ষা! প্রিয়, পুণ্য অপেক্ষা ফলজনক, সাচার অপেক্ষা গ্রশংসনীর়। ভগবান্‌ ননের তন্রূপ ভক্তি প্রণয়ে চারুতর পৃজালাভ করিয়! তাঁহাকে আশীর্বাদ করতঃ প্রস্থানে প্রধত্ত হইলেন। নন্দ স্বর্ণপাত্রে নিজ হৃদয়ের হ্যা মধুর কতকগুলি উপহার লইয়! ভগবানের পশ্চাৎ গমন করিতে প্রবৃত্ত হইলেন। প্রিয়তমকে ভগবানের পশ্চাৎ গমন করিতে দেখিয়া, তাহার খিরহভয়ভীত। প্রেয়মী পত়ী সুন্মরী তাহার প্রতি কটাক্ষপাত করিলেন সেই সময় গুরুজনের অগ্রে সরল তরল দৃষ্টি পরিত্যাগ করিয়া ভয়- প্রযুক্ত মুকুলিত নয়নে শ্বামীর প্রতি ঈষৎ কটাক্ষপাত করতঃ সেই নুনারী যেক্ষণকালের জন্ত মৌনবদনা হইলেন, তাহাতেই “হে নাথ তুমি যেও না” এই কথা অধিকতর রূপে বল! হইয়াছিল নন্দ, প্রণয়িনীকে চঞ্চলনয়ন| দেখিয়া, "এই আদিতেছি,” বলিলেন। তৎ্পরে আশ্রমে গিয়। কৃতাঞ্জলি- প্রটে বলিলেন, "ভগবন্! তবে গৃহ গমনের জন্য অন্থমতি করুন!” . কারণ, তখন নন্দ প্রিয়তমা বিরহে অধীর হইয়াছিলেন। প্ভগবান্‌ আসন পরিগ্রহ করিয়া ঈষৎ হান্তপূর্ঘঘক নন্দকে বলিলেন, “বৎস নন্দ! গমনের জন্ত এত ত্বরা ফেন? হায় বিষয়ের আত্বাদে গৃহন্থুথে ঘাহীরা মোহিত, তাহাদের মন কোন প্রকারেই বৈরাগ্যের প্রতি ধাবিত হয় না। গুণ জীবনের আভতরণ, বিবেক গুণের আভরণ, শাস্তি বিবেকের আঁভরণ, বৈরাগ্য শাস্তির আতরণ। অতএব বৎস, রাঁজপুজ নন্দ! তুমি জিতেন্দরিয় হইয়া প্ররজ্যা পরিগ্রহ কর, এই পার্থিবসম্পর্‌ যৌবন বসস্তে্ শ্তায় কেবল ভোগকালে স্ুখপ্রদ আত্মার কল্যাণের জ্ত ্রহ্ষচর্য্য গ্রহণ কর, এই অসার গৃহ-সংসার পরিত্যাগ কর।” ভগবানের করুণাপূর্ণ বাক্য শুনিয়। পরী গ্রণয়ে অনুর নন্দ বলিলেন, ভগবন্‌ ্রত্রজ্য। অপেক্ষ। ভিক্ষুসজ্ঘের উপ” কানের আস্ত গৃহস্থ ধরে আমার অধিক প্রীতি।/ এই কথ! বলিতে বলিতে গ্কগবানের কথা অতিক্রম করিতে অসমর্থ প্রিয়তযার গ্রেমে 'আকুউচিস

৬২২. দাসী 1 ৫ম ভাগ ১২শ সংখ্যা

হয়া নন্দ কিয়ৎংকালের নিমিত্ত সংশয়াকুল হইলেন। কিন্তু ভগবান্‌ পুনঃ পুনঃ তাহাকে ব্রত গ্রহণের জন্ত আদেশ করিতে লাগিলেন। সাধুগণ পরোপকারে উদ্যত হুইয়! প্রায়ই যোগ্যতার বিচার করেন না। যখন নন্দ ইত্দ্রিয়ের আকর্ষণে প্রব্রজ্যা গ্রহণে বাগ! করিলেন না, তখন আপন! হইতেই তাহার দেহে প্রব্রজ্যার লক্ষণ লক্ষিত হইল। তথন তিনি গৈরিকবসনপরিধায়ী, কমগুলুহস্ত ন্ুবর্ণবৎকাস্তিবিশিষ্ট হইয়! মহাপুরুষের লক্ষণে শোভিত হইলেন এবং ভগবানের আদেশে আরণা ফলমূলে তাহার জীবন যাপিত হইতে লাগিল। নন্দ গ্রব্রজ্য অবলম্বন করিলেও শশাঙ্ক যে প্রকার নিজদেছে সুস্পষ্ট মুগলাঁঞ্ন ধারণ করেন, তব্রপ তিনি প্রিয়তমার কমনীয়ছবি হৃদয়ে বহন করিতে লাগিলেন। মন স্ফটিকের স্তায় শ্বচ্ছ হইলেও অনুরাগ কোন্‌ পথে তাহাত্ব অভ্যন্তরে প্রবেশ করে বলিতে পারি না, ক্ষালিত হইলেও উহা! হৃদয় পরিত্যাগ করিতে চার না। বিরহে অক্ষম নন্দ ধৈর্য্যচ্যুত হইয়। কাননে বিচরণ করিতেন, ক্ষণকালের জন্তও তাহার প্রেয়মী নুন্দরীকে বিশ্বৃত হইতেন ন1; ভাবিতেন, “হায় ভগবান্‌ নিতান্ত অনুগ্রহ করিয়! আমার জন্য এইরূপ যত্ব করিলেন কিস্তু আমার রাগাসক্ত চিত্ত কিছুতেই বিমল ভাব প্রাপ্ত হইতেছে না। সংসারের বৃত্তান্ত শ্রবণ করিলাম, নিঃসঙ্গত্রত অবলম্বন করিলাম, তথাপি আমার মন সেই হুরিগনর়নাকে ভুলিতে পারিতেছে না। হা! প্রে়সি! 'ক্ষণকাল মধ্যেই আমি আসিতেছি” এই কথ! বলিয় আগমন করতঃ তোযার দর্শনে একান্ত অন্তরায় এই কৃতত্ব ব্রত অৰলম্বন করিলাম! আমার বিরছে সেই প্রিয়তমা সুন্দরী নদীপুলিনস্থিত বিরহিণী চক্রবাকীর নাক সৌধতলে একাকিনী শয়ন করিয়। শোকোচ্ছাস পরিত্যাগ করিতেছেন। হা প্রিয়ে! আমি সত্যনিষ্ঠী হইতে পরিত্রষ্ট বঞ্চকের স্তায় তোমার চিত্বছারী হইয়া এই মিথ্যাব্রত অবলম্বন। করিয়াছি। আমি ব্রত পরিত্যাগ করিয়া প্রিয়ার নিকটে যাই। প্রণয়াসক্ত চিত্ত ব্যক্তিদের তগন্া। দুঃসহ সন্তাপ মান্র। আহা! সেই রাজপুত্রী, আমার প্রিয়তম! শুন্দরী, বহু বিলম্বেও যাইতে না দেখিয়া আমাকে নিষঠর মনে করতঃ অভিনব বিরছে কি করিবেন জানি না। যে মুহূর্তে গৰান্‌ এই বনে থাকিবেন না সেই মুহূর্তেই আমি গৃহে চলিয়! যাইব, ইহাই

ডিসেম্বর, ১৮৯৩ ] ুনদরীনন্দ চরিত ৬২৩

/ ষ্ঠ নিশ্যয়। এই শিলাতলে গৈরিক ধাতু দ্বার! নেই চন্ত্রমুখীর মুষ্ঠি অন্কিত ফরি, যদি ইহাদ্বার। কথঞ্চিৎ ধৈর্য্য লাভ হয়। অথবা সেই প্রিয়তমাকে কি প্রকারে চিত্রিত করিব, সুধাকর সরমিজে ধাহার মৌনর্ষ্যের লেশ মাত্র লক্ষিত হয়?” এইরূপ চিস্তা করিতে করিতে ধীরে ধীরে সেই সুন্দরীর মৃত্তি অঙ্কিত করিতে প্রবৃত্ত হইলেন, তাহার নয়ন হইতে বিগলিত বাপ্পবারিতে অঙ্গুলি ধৌত হইতে লাগিল। তাহার পর প্রিয়ার মৃত্তি সন্মুথে রাখিয়া বিরহ্যন্ত্রণার নান প্রকার বিলাপ করিতে লাগিলেন। পবিব্রাজকগণ নন্দের অবস্থাবলোকনে বিরক্ত হুইয়। ভগবানকে বলিলেন, প্গ্রভো! লোকে কুকুরের গলদেশে যেমন পুষ্শমাল! প্রদান করে, তন্দরপ আপনি বাৎসল্য প্রযুক্ত এই ছুধিনীতকে মন্ন্যান প্রদান করিয়াছেন। দেখুন, নন্দ শিলাতলে প্রিয়ার মুখ অস্কিত করিয়া তাহাকে কত কি বলিতেছে এবং তাহারই ধ্যানে মগ্ন আছে। ভগবান্‌ ইহা শুনিয়। তৎক্ষণাৎ নন্দকে আহ্বান করিয়। বলিলেন, “বৎস নন্দ! একি ?” নন্দ বলিলেন, “তগবন্! সত্য সত্যই আমার চিত্ত কাস্তার প্রতি অন্থ- বুক্ত, ভিক্ষুগণের অভিমত এই কাননবাসে আমার মন অভিলাষ করে না। ভগবান্‌ বুদ্ধ তাহা শুনিয়! তাছার মুখের প্রসন্নতার্ধার। নন্দের সংপারান্থ্রাগ ধৌত করিয়া বলিলেন, “হে সাধে! তোমার সংসারের প্রতি মতি করা! যুক্তিযুক্ত নহে, বিদ্ব কল্যাণাকাজ্জী ব্যক্তির চিত্ত আকর্ষণ করিতে সমর্থ হয় ন1। কোথায় পবিভ্রতম যোগ, আর কোথায় ক্ষণিক সুখপ্রদদ নিন্দনীক্ বিষয়োপভোগ ! ছুরতিত্রম্য এই নিকৃষ্ট সুখাভিলাঁষ মানবের কল্যাণ অপহরণ করে। হায়! প্রেম ব্যক্তিদের এই দশাই ঘটিকা থাকে!” ভগ্রবান্‌ এইরূপ বৈরাগ্যের উপদেশ দিয়! “এখানে থাক” এই কথা বলিতে বলিতে নিজ কাধ্যে প্রস্থান করিলেন। নন্দ গমনের উত্তম অবসর পাইয়া প্রিয়তমার দর্শন লালায় প্রফ্ল্পচিত্ডে স্বগৃহে গমন করিলেন। থুরিয়। ফিরিয়া যেই নগরী দ্বারে উপস্থিত হইয়াছেন, অমনি সর্ব ভগ্গবান্‌ বুদ্ধ সেই বৃত্বাস্ত জানিতে পারিয়া, তাহার সন্মুথে উপস্থিত হইয়া বলিলেন, “কি নন্দ! এত তাড়াতাড়ি কোথায় যাওয়! হইতেছে?” নন্দ বলিলেন, “ভগবন্! আমার বনবানে ইচ্ছ। নাই। অন্ধুরাগাসজ-চিত্ত ব্যক্তিদের কোন ক্রিয্নাই সফল হয় না। যে প্রকার পঞ্জরবদ্ধ বিহ্দ উৎ্কতিতচিত্তে কালযাপন করে, তত্রপ জানি

৬২৪ দাসী [৫ম ভাগ, ১২শ সংখা1।

অনুরাগাসক্তচিত্তে এই ব্রক্ষচর্যোর অনুষ্ঠান করিতেছি। আমি প্রত্রজা। পরিত্যাগ করিয়া ষাইতেছি। আমার অনস্ত নরক হউক? মগ্িষ্ঠায় রক্ত- বর্ণ বসন কদাচ.শুত্রত। লাভ করে ন।”। কিং

এই কথ! বলিয়া! গমনে উদ্যত হইলে, ভগবান্‌ বুদ্ধ নন্দকে নিবারণ করতঃ অনুগ্রহ পূর্বক বলিলেন, “হে ননা! ৰিপর্ধ্যয় ঘটাইও না, তত্বজ্ঞানে অবহেল! কর! বড়ই নিনানীয়। ধাহার! বিবেকদ্ধার বিশদচিত্ব, চরিত্রবান্‌, জ্ঞানী, তাহাদের বুদ্ধি অসার সুখে নিমিত্ত অকার্ধ্যে প্রবর্তিত হয় না। তুমি গৃহজাল হইতে, বিষুক্ত হইয়াছ, পুনরায় কেন তাহাতে ধাবিত হইতেছ? সারঙ্গ একবার নির্গত হইলে কি পুনরাপ্প জালে প্রবেশ করে 1” এই সকল শ্রবণ পূর্বক নন্দ ভগবানের শাসনে বদ্ধ হইয়া, নিজ প্রিয়তম! পত্বী সুন্দরীকে চিস্তা করিতে করিতে পুনরায় আশ্রমে প্রবেশ করিলেন। অনস্তয় একদিন নন্দকে আশ্রমের মার্জনায় নিযুক্ত করিয়! ভগবান্‌ ধ্যান করিবার নিমিত্ত সমন করিলেন। নন্দ ভগবানের আদেশে আশ্রমের মার্জানাকার্য্যে প্রবৃত্ত হইলেন ৰটে, কিন্তু তাহার চিত্তবুত্বিস্থ রজঃ অর্থাৎ অন্ুরাগের ন্যায় সেই ভূতলের রজঃ অর্থাৎ ধূলি দূরীভূত হইল না। তিনি জলাহরণের নিশিত্ব কুস্ত লইয়া গিয়া অন্যাসক্তিনিবন্ধন শূন্ত কলম লইয়! প্রত্যাগত হইলেন। সেই সকল ঘটনায় নন্দের চিত্ত নিতাস্ত বিষ হইল, তিনি সুন্দরীর দর্শনের আশায় আশ্রম ত্যাগ করিয়। প্রস্থান করিলেন। সর্বজ্ঞ ভগবান্‌ বুদ্ধ দিব্যজ্ঞানপ্রযুক্ত সেই বৃত্তান্ত পরিজ্ঞাত হুইক্স, ঝটিতি নন্দকে সম্বোধন করিয়া! বলিলেন, প্বৎস! রমণীর প্রতি অভিলাষ পরিত্যাগ: কর, নীলীবর্ণের স্যার তোমার চিত্তে কি একপ্রকার অনুরাগ বদ্ধমূল হইয়াছে, যাস বহু চেষ্টায়ও দূরীভূত হইতেছে না। অসৎ বন্ধুগণের ন্তায় ইন্দ্রিয়বর্গ, জীবগণকে বিষয়ের আস্বাদ প্রদান করিয়! দুস্তর নরকে পাতিত করে।” এইরূপ নানা উপদেশাস্তে ভগবান্‌ নন্দকে লইয়। গন্ধমধদন পর্বতে গমন করিলেন, সেখানে বনাগিতে দগ্ধ কদাকার। একটা দৃষ্টিহীন! মর্কটা দেখাইয়| বলিলেন, প্নন্দ ! এই যে কদাকার। মর্কটী দেখিতেছ, এও কোন ব্যক্তির প্রিয়দর্শন| যোগ্যপাত্রী, ইহার প্রতিও কাহারও অনুরাগ হয়। বস্ততঃ পদার্থের কোন সৌন্দর্য্য কিংবা] অসৌনদর্যয নাই,হদয়ের অসুরাগই বস্তর রমণীয়তা অবলোকন করে। যে যাহার প্রিয়,সেই তাহার পক্ষে রমণীয়। বৎস নন্দ! তুমি পক্ষপাত পরিত্যাগ করিয়! সত্য

ডিসেম্বর, ১৮৯৬ ] স্বনদরীনন্দ চরিত ৬২৫ ষ্ঠ রর

করিয় বল দেখি, সেই তোমার পত্রী হ্থনরীর সহিত এই মর্কটার লাবণ্যের' কি পার্থক্য ? আমরা প্রার্ নহি, ন্থতরাং আমাদের নিকট সৌনর্য্যের কি গ্রভেদ হইবে? প্রার্থা ব্যক্তিই প্রার্থিত বস্তুর চারুতা অনুভব করিতে পানে আমি সেই সুন্দরী এই মর্কটাতে কোনই বিশেষ দেখিতেছি না) মাংস, চর্ম অস্থি দ্বার! নির্মিত এই যন্ত্রে সময়ের গুণে রমণীয়তা বোধ হয়।”

ভগবান্‌ এইরূপ জিজ্ঞাসা করিলে নন্দ বলিলেন, “্ভগবন্‌! আপনার এই প্রশ্থ অত্যন্ত অন্ুচিত। ভগবান্‌ কি বলেন, থ্বাহারা বিশ্বগুরু তাহাদের আর কে উপদেশ দিবে? অধিকল্ুন্দীর প্রতি ওৎকর্ষপ্রযুক্ত অধিক প্রণয় হয় থাকে। আমার সেই প্রেয়দী হুন্দরীর সহিত কাহারও তৃলন। হয় না, জ্যোত্নার সহিতও আমার প্রিয়ার কান্তির উপম1 হয় না, হংস হরিণ যথাক্রমে তাহার বিলাসগতি নয়নশোভ1 অপহরণ করিয়া ভয়- প্রযুক্ত কানন আশ্রয় করিয়াছে” ভগবান রাগাসক্তচিত্ত নন্দের বাক্য শ্রবণ করিয়া দিব্য প্রভাব নিবন্ধন তাহাকে সুরলোকে লইয়া! গেলেন এবং সেধানে দেবরাজের নন্দনকাননে সমুদ্র মন্থন কালে সমুখিত। অপূর্ব গাবণ্যতী ধিব্যাঙ্গন৷ সকল দেখাইলেন। সেই স্ুরস্ন্দরীগণের অরুণবৎ কান্তি, লোহিত পদ্মের গায় চরণতল, অস্ুলি সকল পারিজাত পন্নবের তায় মনোহছর। পুণযৌবনা। অপূর্ব লাবণ্যবতী সেই সুরললনাগণকে মহস। নিরীক্ষণ করিয়া নন্দ স্তত্তিত হইলেন।

তগবান্‌ বুদ্ধ বলিলেন, “বৎস নন্দ! এই দেবাঙগনারা দেখিতে কেমন ? ইহাদের সহিত তোমার পত্রী সুন্দরীর কোন রূপের পার্থক্য আছে .কি? তোমার সুন্দরী অপেক্ষা ইহার! যদি অধিক সুন্দরী হয়, তুমি অনন্তচিত্তে প্রসন্ন মনে ব্রহ্মচর্য্যের অনুষ্ঠান কর, এই অগ্মরা সকল তোমাকে প্রদান করিব।” ভগবানের এই বাক্যে নন্দ নিশ্চিন্তচিত্তে ব্রত আচরণ করিতে, লাগিলেন। সেই স্বর্গীয় ললনাগণের সমাগম প্রত্যাশায় নিজ বনিত। হুন্দরীর প্রতি নন্দের অনুরাগ বিলয়প্রাপ্ত হইল। কেন হুইবে নাঃ বাহিরের সৌন্দর্য্য লইয়] যাহাদের ক্রয় বিক্রয় তাহাদের ভালবাসার স্থায়িত্ব কোথা হইতে হইবে? হায়! প্রবাসে বিশস্ৃতি অন্তের সহবাস নিবন্ধন- পুরুষগণের অভ্যাসগত ভালবাস! হঠাৎ লীন হয়। শরীরীদিগের যৌবনের, রমণীয়ত। ক্ষশিক,তজ্জন্ত প্রণয়ও ক্ষণিক, ইহ সত্য কিংবা নিত্য অথব। সুখকর. হইতে পারে না।

৬২৬ দাসী, [৫ম ভাগ, ১২শ সংখ্যা

তাহার পর ভগবান্‌ নন্দকে আশ্রমে লইয়া গেলেন, নন্দ তগন্তায় প্রবৃত্ত হুইলেন। একদ। নন্দ ভ্রমণ করিতে করিতে কোন স্থানে কুস্তীনামক এক ঘোর নরক দেখিতে পাইলেন, সেখানে পাঁপিগণকে প্রতপ্ত তৈলপূর্ণ কটাছে নিমজ্জিত করিয়া যাতনা! প্রদান করিতেছে ননদ পাতকীদিগের দারুণ যন্ত্রণ দেখিয়া! ভয়ে কাপিতে কাপিতে নরকের কারণ জিজ্ঞাসা করিলেন। তত্রত্য লোকেরা বলিল, “কামাসক্তচিত্ত নন্দের জন্য এই নরক সৃষ্ট হইয়াছে অদ্যাপি তাহার হৃদয়হইতে বাসন! বিদুরিত হয় নাই। সে শ্বর্গাঙ্গনাদের কামনায় মিথ্য! ব্রহ্ষচর্যযব্রত করিতেছে যাহার! কপট ব্রত আচরণ করে এবং লোতী, রাগদ্েষহিংসাঁয় যাহাদের হাদয় পরিপূর্ণ, তাহাদের অনন্ত কালের জন্য এই কুস্তীনামক নরকে বাস হয়।” নন্দ ইহা শুনিয়া চকিত 'হ্টয়। উঠিলেন, তাহার সর্ধশরীর রোমাঞ্চিত হইল। তখন তাহার মনে হইল, কুস্তী নামক নরকে পতিত হইয়া! যেন তিনি ভীষণ যন্ত্রণা ভোগ করিতেছেন। তিনি অনেকক্ষণ পশ্চানাঁপ অনুভব করিলেন, তাহার সমস্ত বাদন! দূরীতৃতত হুইল, তাহার পর একান্ত মনে ধ্যানে প্রবৃত্ত হইলেন। মোহ এবং সংশয়বিমুক্ত হইয়! তাহার চিত্ত শরৎ, কালের সাগরবারির ন্যায় বিমল ভাব ধারণ করিল। তখন নন্দ কামনাশুন্ত পবিত্র চিত্ত হইয়! পরম শান্তিলাভ করিলেন এবং ভগবান্‌ জিনদেবকে সম্বোধন করিয়া বপিলেন, প্প্রভো ! আমায় অপ্পরাগণে প্রয়োছ্ধন নাই, স্থনারীকেও আর আমি চাহি না। ইহারা আপাত রমণীয়, পরিণামে অতি বিরস। যখন এই সকল বস্ত ভাবন! কর! যায় তখনই হ্বদয়বৃত্তি কলুষিত্ত হয়, প্র সকল মন হইতে পরিত্যাগ করিতে পারিলেই হৃদয়ের ভার যায়, হৃদয় প্রসন্ন হয়।”, নন্দের এই সকল কথ! শ্রবণে ভগবান্‌ বুদ্ধদেব ভাবিলেন, নন্দ যথার্থই নির্বাণোচিত সিদ্ধিলাভ করিয়াছেন।

অমন্তর পরিব্রাজকগণ ভগবান্‌ বৃদ্ধকে দিজ্ঞাসা করিঝোন, পপ্রভো ! নন্ন কোন্‌ কুশল কর্দের জন্ত এইরূপ সিদ্ধিলাভ্ভ করিলেন, আমাদিগকে বলুন ।” ভগবান্‌ বলিলেন, “হে ভিক্ষুগণ ! নন্দ পূর্ব পূর্ব জন্মে যে নকল পুথ্য অর্জন করিয়াছলেন, তাহারই পরিণামে এই সিদ্ধিলাভভ হইল। পবিভ্র বংশে জন্ম, শুনার দেছ, প্রণরিনী ভার্ধ্যা, নুথগ্রদ সম্পৎ, সাধুগণের প্রিয়ব্যবহার, গবধশেষে শান্তি সপিলে স্নান নির্বাথ,-এ সকল কুশল কর্রূপ কুনুমের সৌরভ 1” শ্রীশরচ্ন্ত্র শান্ত্রী।

ভারতীয় ত্রহ্ষবিষ্ঠা। (পূর্ব প্রকাশিতের পর।)

খথেদের সময়ে আর্যেরা এমন অজ্ঞান ছিলেন ন! যে অগ্নি, বাযু, সুর্য ধথেল্দর সময়ে আর্ধাদের মেঘ প্রভৃতি বস্তকে তাহারা এক একটা দি হে কা জীব বলা সবে করি তথাপি প্রন্ষ,টিত হয় নাই। তাহাদের চিত্বে অহং ইদংএর শ্বরূপ জ্ঞান তখনও সম্যক্রূপে পরিস্ফুট হয় নাই;

এজন্ত তাহারা এই সকল প্রাকৃতিক বস্তকে আপনাদেরই ন্তাঁয় শক্কিমস্ত-__ শক্তির আধার বলিয়া মনে করিতেন। প্রথমে তাহারা বিশেষ বিশেষ অগ্নিতে, বিশেষ বিশেষ মেঘে, বিশেষ বিশেষ

জাতীয় বস্তুতে শক্তির . এক অখণ্ড বস্তু বলিয়া মনে করিতে পারিতেন ন1। প্রকাশ দর্শন কালক্রমে তাহার! বহুত্ব ছাড়িয়া একত্বে পহু'ছিতে লাগিলেন। ভূঁলোক ছ্যলোকে যত অগ্নি

আঁছে, সকলেরই অধিষ্ঠাত্রী দেবতা হইলেন এক অগ্নি। যত মেঘ, বিদ্যুৎ বজ আছে, সকলেরই অধিষ্ঠাত্রী দেবত। হইলেন এক ইন্ত্র; এবং এক অখণ্ড সর্ধাধার আঁকাশদেবতা হইলেন বরুণ। এইবূপে যেমন এক এক জাতীয় বস্ততে এক এক অধিষ্ঠাত্রী দেবতা কল্পিত হইলেন, তেমনি অন্ত দিকে দেবতাগণের

দেবতাগণের ক্ষমতা ক্ষমতা অধিকার (1070607 ) নির্দিষ্ট রা রর হইতে লাগিল বজ্ধারী, মহাপরাক্রমশাণ) টন জাতীয় সেনানায়ক হইয়। উঠিলেন। খষি বলিতে-

ছেন--"হেইন্ত্র! তুমি যুদ্ধের নেতা, তুমি মরুতগণের সহিত প্রধান প্রধান যুদ্ধে স্পর্ধা পূর্বক শত্রু সংহারে সমর্থ। তুমি শূরগপের সহিত শ্বয়ং (সংগ্রামনথ ) অনুভব কর।”” পহেউগ্র ইন্ত্র! তোমার তক্ত যজ- মানের বিরুদ্ধকারীকে উগ্ররক্ষণ-কার্য্যরূপ তেজোময় উপায় সমূহ জার] অবনত করিয়া দাও। তুমি পূর্বকালে যেরূপ (আমাদের পূর্বপুরুষদিগকে পথ দেখাইয়! লইয়া গিয়াছিলে ) আমাদিগকেও সেইরূপ লইয়া যাও।” অঙ্সি পাবক। তৃণকাষ্ঠাদির স্তায় তিনি

৬২৮ দাসী [ €ম ভাগ,১২শ সংখ্য।

অপরাধ পাপ সকলকেও দগ্ধ করেন। স্ৃতরাং তিনি দেবতা মন্থু- অগ্নি দেবতা মন্ুযোর . [য্যের মধ্যে মধ্যবর্তী স্থান অধিকার করি- মধ্যবর্তী এবং সমস্ত পারি- লেন। যজ্স্থলে দেবোদেশে অন্ন, ঘৃত, ব্রীহি বারিক সামাজিক সম্ব- বের পবিত্রতা বিধায়ক. যবাদি যাহা কিছু উৎ্সর্ণিত হয়, অগ্নি পে সমস্তকে দেবগণের সমক্ষে লইয়। যান। আবার দেবগণকেও তিনি প্রসন্ন করিয়া! যজ্ঞস্থলে লইয়া আসেন। পরলোকগত পিতৃপুরুষগণের পৃজাতেও অগ্িদ্েবত1 মধ্যবর্তী। আবার অগ্রিদেবতাকে সাক্ষী করিয়া বিবাহাদি সমস্ত সংস্কার সম্পন্ন করিতে হয়; সুতরাং পারিবারিক সামা, জিক সমস্ত সন্বন্ধের পবিত্রতা বিধানও করেন অগ্নি। বৈদিক খষি বলিতে- ছেন--*অগ্নিকামনীকারী খত্বিকগণ মনুষ্য সমাজে অগ্রিকে গ্রাবন্তিত করিয়া, মনুষাদিগেব্র পবিত্র হইবার উপায় করিয়। দিয়াছেন; সে অগ্নি এক্ষণে সোম পানে মত্ত হয়েন, হোতা হয়েন, যজ্ঞ গ্রহণ করেন, অনুষ্ঠানের পথ দেখাইয়! দেন, সর্বত্র বিচরণ করেন এবং হোমের দ্রব্য দেবতাদের নিকট বুহন করেন।” তে সকল সাধুশীল পিতৃলোক দেবতাদিগের সঙ্গে একত্র হইয়া হোমের দ্রব্য ভক্ষণ পান করেন এবং ইন্দ্রের সহিত এক রথে আরোহণ করেন, হে অগ্নি! সেই সমস্ত দেবারাধনাকারী যজ্ঞের অনুষ্ঠান- কারী প্রাচীন আধুনিক পিতৃলোকদিগের সহিত এস” আকাশ অতি শুত্র নির্মল, প্রশান্ত বিশাল আকাশ ডিস সর্বদা, সর্বসাক্ষী, ুর্ধ্যালোকে প্রদীপ্ত উজ্জবল। পরিভাত.. এজন্ত আকাশ-দেবতা বরুণ সমস্ত নৈতিক গুণের, সমস্ত পুণ্যের আধার বলিয়! কল্পিত হইলেন; এবং খত অর্থাৎ ধর্রক্ষক বলিয়! আধ্যসমাজে পূজিত .হইতে লাগিলেন। খথেদ-সংহিতায় বরুণের সম্বন্ধে নিম্নলিখিত বিশেষণ গুলির প্রয়োগ দেখা যায় £__সর্কদ্রষ্টা, শুদ্ধবল, স্ুকম্মা, সত্যবান্‌, সত্যদর্শী, হিংসাবর্জিত, ক্রোধবিহীন, দানশীল, সদাশয় ইত্যাদি। বরুণ সর্ধদ্রষ্টা,--তিনি পাপ পুথা সমস্ত দেখিতে পান; কিন্ত তিনি পাপীর প্রতিও কৃপা পরবশ। আনেক খকে এইরপ উক্তি দেখিতে পাওয়া যায়__ "অপরাধ করিলেও যে বরুণ দয়! করেন।” হৃদয়ে পাপের অন্ত অনুতাপ উপস্থিত হইলে, ত্সার্য্যগণ বরুণের নিকট করজোড়ে প্রার্থনা করিতেন-: "ছে বরুণ, আমরা মনুষ্য ; দেবগণের সম্বন্ধে আমর! যে কিছু বিরুদ্ধাচরণ

ডিল, ৯৯1] ভারতীয় ন্ধবিদ্যা ৬২৯

করিয়াছি, সেই সকল পাপ প্রযুক্ত আমাদিগকে হিংসা করিও না।” “হে বরুণ! বদি আমরা কখনও কোন দাতা; বিব্র, বয়স্ত, ভ্রাতা, নিকট প্রতিবেশী বা যুকের গ্রতি কোন অপরাধ করিয়া! থাকি, তাহ! হইলে তাহা নষ্ট কর।» “হে বরুণ ছ্যত'ক্রীড়ায় গ্রবঞ্চনাকারী পাশক্রীড়কের স্তায় বদি আমরা জ্ঞানপূর্ববক বা অজ্ঞানবশতঃ অপরাধকরি) তাহ! হইলে তুমি শিথিল (বন্ধনের ) স্ঠায় তৎসমুদায় হইতে মুক্ত কর” কিন্ত কেবল মাত্র অন্ধ জড়শক্তির সংশ্রবে আলিয়াই কি জআর্ষোরা বরুণের হ্যা শুদ্ধঠেত1! বরুণের গ্যায় শুদ্ধচেতা পুণ্যবান এক দেবত। কল্পনা দেবত1 কল্পনা কিরপে করিতে সমর্থ হইলেন ? এরূপ মনে করিলে মোক্ষ- সম্ভব হইল মুলরের ন্যায় আমরাও বিষম ভ্রমে পতিত হইব। সর্বদাই আমাদিগকে কথা স্মরণ রাখিতে হইবে ষে, প্রকৃতি পুজার মধে আমর! আর্ধাদের জীবনের একটা মাত্র দ্রিক দেখিতে পাই। উহার অন্তরালে তাহাদের আর একটা বৃহত্তর মহত্তর জীবন আছে। এখানে আর্যদের সেই সামাঞ্জিক জীবন সন্বন্ধে ছুই একটা কথা বল! আবশ্যক রাজা বিস্তার অপেক্ষা ধর্ম পূর্বেই বলা হইয়াছে যে আর্ধ্জাতি শান্তিপ্রিয় সমাজ বন্ধনের দিকে সত্য বটে, অনাধ্যদের সহিত তাহাদিগকে ঘোরতর আর্ধাদের অধিক দৃষ্টি সংগ্রাম করিতে হইয়াছিল; তথাপি কথ। স্বীকার করিতে হইবে যে,আর্য্যেরা সমরপ্রিয় জাতি (111691 786107) ছিলেন না ধঙ্দদ সমাজ বন্ধনের দিকেই তাহাদের অধিক দৃষ্টি মনোষোগ ছিল এজন্যই খণ্থেদে ধত অর্থাৎ এজন্যই আমরা খর্েদে বীরপুরূুষগণ্র প্রেতাত্মা সমাজধর্দরক্ষক পিতৃপুরুষ- পৃজার কোনও নিদর্শন পাই না। যে সকল পিস্ৃ- বিজন পুরুষ খণ্থেদে পুর্মিত হইয়াছেন, ত্বাহার। সকলেই পুরা নহে যক্তরক্ষক-__খত অর্থাৎ সমাধর্মরক্ষক। এই সকল শুদ্ধচেত।, সৎকর্্দনিরত পুরুষগণ আর্যযসমাজে পরাভূত হইয়। শুদ্ধ আর্ধাদমাজে শুদ্ধচেত। খধি- চরিত্রের দৃষ্টান্ত দেখাইয়াছিলেন এবং আর্ধাসমাঞ্জে গণের আবির্ভাব এবং গুদ্ধ- খত অর্থাৎ ধর্মনিয়মাদি সংস্থাপন করিয়াছিলেন চেতা। বরুণ দেবতা কল্পন। বলিয়াই, যেমন একদিকে সাধুশীল পিতৃপুকষণণেয প্রেতাত্মার পূজা আরম্ভ হইল; তেমনি অন্যদিকে গুদ্ধবল, স্থুকর্্মা, ধর্মম- রক্ষক এক বরুণ দেবতা কল্পনা কর!- সম্ভব হইয়া উঠিল। অগ্নির গুব কিতে করিতে খষি পিতৃপুরুষগণের সম্বন্ধে বলিতেছেন--“হে অগ্ি! ষে

৬৩৭ [.....,., দ্বাপী [৫ম ভাগ,১২শ সংখ্যা!

সকল পিভুলোক হোম করিতে জানিতেন এবং বিবিধ খকু রচন। পূর্বক স্তব প্রস্তত করিতেন, সুতরাং ধাহার! নিন্ম সৎকর্দ প্রভাবে এক্ষণে দেবত্ব প্রাপ্ত হইয়াছেন; যদি তাহারা ক্ষুধাতৃষণাযুক্ত হইয়। থাকেন, তাহাদিগকে লইয়! ( যজ্জ স্থলে) আমাদের নিকট এস,......তাহার্দিগের জন্ট এই সকল উৎকৃষ্ট কব্য অর্থাৎ দ্রব্য রহিয়াছে খণেদ-সংহিতার দশম অর্থাৎ শেষ মগ্ডলে স্বাদিয়া৷ আমর! এই পিতৃলোক-পুজ। দেখিতে পাই। এই পৃজ! পিতৃপুরুষ পুজার শেষ পরি- কালক্রমে বর্ধিত শৃঙ্খলাবন্ধ হইয়া কঙ্লান্ত্গত ণাম বিবাহাদি দশ সংক্কার গৃহ্শৃত্রে বিবাহাদি দশ সংস্কার সন্বন্ধীয় নান্দী শ্রাদ্ধে .. সব্ধীয় নাশীশ্রাদ্ধ পরিণত হয়। পিতৃপুরুধগণ গাহস্থ্য সমাজধর্মের প্রতিষ্ঠাতা--সমন্ত কল্যাণকর বিধিব্যবস্থার প্রবর্তক রক্ষক; জন্তই আঁধ্যগণ পরলোকগত পিতৃপুরুষগণের অর্চন। করিয়া,_-তাহাদের উদ্দেশে অন্নববাদি উৎসর্গ করিয়া, এবং তাহাদের আশীর্বাদ ভিক্ষা! করিয়1, বিবাহাদি প্রত্যেক গার্হস্থ্য দামাজিক অনুষ্ঠান আরস্ভকরিতেন। এইরূপে অগ্নি, বক্ষণ ইন্্রাদি দেবগণের স্তায় পিতৃপুরুষগণেরও ক্ষমত। অধিকার নির্দিষ্ট হইল কিস্তু অন্তদিকে দেবতাদের মধ্যে কে প্রধান, আর্ধ্যগণের মনে এই এক প্রশ্ন উদ্দিত হইল। সময় ভিন্ন ভিন্ন দেবোপানক-

5 গণের মধ্যে কিছু কিছু বৈরিত! প্রতিঘন্থিতার এক সময় এক এক দেব ভাব লক্ষিত হয়। দেবোপাসকের। একে অন্তকে তার প্রাধান্য কীর্তন আক্রমণ করিতেছেন-_-পরম্পরের নিন্দা করিতে- ছেন। ফোন উপাসক অগ্নিকে, কেহ বা ইন্দ্র

অথব! বরুণকে, অন্ত কেহ বা অন্য কোন দেবতাকে দেবতাগণের সম্রাট, প্রত্ধাপতি অর্থাৎ সষ্টির সর্বময় প্রভু বলিয়৷ অর্চনা করিতেছেন। যখন যে দেবতার পুজ। হইতেছে, তখনই তিনি দর্ধময় প্রভূ বলিয়! কম্িত স্তত হুইতেছেন। এইরূপ অবস্থাকেই মোক্ষমূলর [7000)6150) নাম দিয়া- এই অবস্থ। ন90০৪৪- ছেন। আধ্যের তখনও 1,150 অর্থাৎ একে- 28009006180) নহে শ্বরবাদে পহছান নাই। কালক্রমে আর্য খষি- গণের চিত্তে বিশ্বের উৎপত্তি সম্বন্ধে নান! প্রশ্নের উদ্নয় হইল। খষি জিজ্ঞাস! আর্ধযগণের চিত্তে বিশ্বের করিতেছেন--সেই বলই বাকি? সেই বৃক্ষই উৎপত্তি সম্বন্ধীয় প্রশ্ের বাকি? যাহ! হইতে উপাদান সংগ্রহ পূর্বক এই

: উদর. ছালোক ভুলোক নির্মাণ কর! হইয়াছে 1”

বিদ্বান্গপ, তোমরা একবার আপন ' মনে জিজ্ঞানা করিয়া! দেখ তির্মি কিসের উর দীড়াইর। ব্রন্মাও্ড ধারণ করেন।” অনেক চিন্তা অঃ *" এতে সন্ধানের পর আর্ধ্য খষির! এই পশ্নের এইবপ রন কি মীমাংস। করিণেন--“ছ্যলোক ভূলোঁক, ইহারাই [.. শেষ নহেন, ইহাদের উপর আরও একজন 'আছেন। তিনি গ্রজ! সৃষ্টি করেন, তিনি ছ্যালোক . ভূলোক: ধারপ করেন। তিনি অন্নের প্রভৃ। যে কালে হুষ্যের ঘোটকগণ হুর্য্যকে। বহন করিতে আরভ্ত করে নাই, সেই সময় তিনি আপনার পবিত্র চণ্ম (শরীর) প্রস্তত করিয়াছিলেন।” “সেই এক প্রভু, তাহার সক দিকে চক্ষু, সকল দিকে মুখ, সকল দিকে হস্ত, সকল দিকে পদ।” দবিশ্বকর্মম! ধিনি তাহার মন বৃহৎ, তিনি নির্মাণ করেন, ধারণ করেন, সপ্তর্ষির পরবর্তী যে স্থান তথাক্প তিনি একাকী আছেন, বিদ্বান্গণ এইরূপ কহেন।* প্যনি আমাদিগের জন্মপ্দাত। পিতা, যিনি বিধাতা, ধিনি বিশ্বভুব্নের সকল ধাম অবগত আছেন, যিনি একমাত্র অথচ সকল দেবের নাম ধারণ করেন, অন্ত তাবৎ ভূবনের লোকে তাহার বিষয়ে ব্বিজ্ঞাসাযুক্ত হয় ।” | দি শীল [...। খখেদ-সংহিতার দশম অর্থাৎ শেষ মণল হইতে উপরের করেকটী মন্ত্র উদ্ধৃত কর! হইয়াছে। প্র মলের শেষভাগে থাষরা, প্রজাপতি, হিরণ্যগর্ভ, পরমাত্ম! নাম এক মহান্‌ স্থষ্টিকর্তীর মহিমা! কীর্তন করিয়্া- ছেন। এই নকল মন্ত্রে স্ঙিকর্তার ভাব আরও প্রশস্ত উন্নত আকার ধারণ করিয়াছে। কিন্তু এখানে আপিয়াই খবিরা বিরত হন নাই। জ্ঞান সভ্যতার উন্নতির সঙ্গে সঙ্গে ধষিরা ঈশ্বরজ্ঞানের মধ্য দিব ক্রমে ব্রন্মজ্ঞানের দিকে অগ্রসর হইতে লাগিলেন ্রাঙ্মণভাগে প্রবেশ করিয়াই, ইহার কিছু কিছু প্রমাণ পাওয়া যায়। এখানে তত, প্রভৃতি শব দ্বারা খষির! এক সর্বব্যাপী অনির্দেশ্য মহাসভ্তাকে লক্ষ্য করিতেছেন। সেই মহান্কে তাহারা চিত্তে ধারণ করিতে অক্ষম,--বাক্যে ব্যক্ত করিতেও অক্ষম। এত খধির নানাবিধ রূপক উপম1 অবলম্বন করিয়া, সেই অমির্দেশ্য মহান্ফে চিন্তায় আয়ত বাক্যে ব্যক্ত করিতে প্রয়াস পাইলেন; এবং

সৃষ্টিকতৃভাবের চরমোতকধ

্রহ্জ্ঞানের প্রথম ক্কুর্তি

৬৩২ 1 ম্বাণী [৫ম ভাগ, ১২শ সংখা? 4

তাহাদের সমস্ত চেষ্টার ফলম্বরূপ অবশেষে তাহার! বহির্জগতে এক বৈদিক ব্ক্ষজ্ঞানের চরমোৎ- অদ্বিতীয় মহাশক্ির প্রকাশ দেখিতে পাইলেন। কর্ষ-_বহির্জগদ্বাপিনী এই এক সর্বব্যাপী অদ্বিতীয় মহাশক্তিই ব্রঙ্গ। এক অদ্ধিতী্র মহাশক্তি বহির্জগদব্যাপী সর্বশক্তিমান এই ব্রদ্ধই ব্রাঙ্মণ- ভাগে বিশেষভাবে কীর্তিত হইয়াছেন। আর্ধে।র যখন এই ব্রক্গতত্বে রঙ্গ উশ্বরের সঙবন্ব.-. পহুছিলেন তখন ঈশ্বরতত্বও তাহার অস্তভূর্ত ঈশ্বর ব্রন্দের শক্তি ত্রদ্ধের হুইয়। গেল। সৃষ্টিকর্তা ঈশ্বর এখন আর সৃষ্টির অধীন প্রভূ নছেন, তিনি নিজেই সেই পরব্রহ্গের অধীন--সেই পরব্রদ্দের শক্কিমাত্র। সৃষ্টিকর্তা অর্থাৎ পরব্রদ্গের স্ৃষ্টি- শক্তি এখন ব্ক্ষা নামে অভিহিত হইলেন। গ্রত্যেক মন্বস্তরে ব্রহ্মা হইতে গ্রজাপতি অর্থাৎ সেই মন্বস্তরের আদি পুরুষ উদ্ভূত হন। সেই আদি পুরুষ প্রজাপতিই প্রত্যেক মন্বস্তরে ব্রহ্মা ত্হি রচনা করেন এবং সেই মন্বস্তরের সমস্ত টা বেদ বিধি প্রকাশ করিয়া গ্রজ। অর্থাৎ জীবের হৃষ্টির রচয়িতা বেদ কল্যাণ সাধন করেন। এই আদি পুরুষ প্রজা" বিধির প্রকাশক পতির মধ্যেই আমর! পরবর্তী অবতারবাদের বীজ দেখিতে পাই। আধ্যের যখন ঈশ্বরতত্ব ছাড়িয়া! ব্রহ্গতত্বে উঠিলেন, তখন তাহাদের তত্বকাঁওড সাঁধনকাণ্ডের চিত্তে এক ঘোর ছন্দ উপস্থিত হইল। দ্বন্দ মধ্যে বিরোধ--নান। তর্ক, ব্রক্গতত্ব উপাসনাতত্বের মধ্যে। আধ্যদের বিতর্ক দনদেহের উৎপত্তি তত্বজ্ঞান ব্রহ্ধ পর্যযস্ত অগ্রসর হইল, কিন্তু ত্তাহা- দের উপাসনা এখনও সেই যাগধজ্ঞার্দি কর্মকাণ্ডের মধ্যে পড়িয়। বৃহিল। তত্বকাও সাধনকাণ্ডের মধ্যে এরূপ বৈষম্য উপস্থিত হইলে মানবচিত্ত কথনও স্থির থাকিতে পারে না। আধ্যদের মনেও সময় নান! তর্ক, বিতর্ক সন্দেহের উদয় হইল। কোন্‌ মন্ত্রের কি শক্তি, কোন্‌ যজ্ঞের কি উদ্দেশ্য, ইত্যাদি নানা প্রশ্ন চিন্তাশীল খধিদের চিত্বকে আলোড়িত করিতে লাগিল। মন্ত্র মন্ত্রাদির রপক কার- যজ্ঞাদির বূপক কাল্পনিক অনেক প্রকার অর্থ নিক ব্যাধ্যা কর! হুইল। কিন্তু কিছুতেই চিত্তের সন্দেহ তুচিল না। অবশেষে আরণ্যক অর্থাৎ অরণ্যবাসী কন্তিপয় খাষি উপা-

ঈশ্বর-ব্রন্গা

ডিসেম্বর : 1] ভারতীয় ত্রহ্গবিদ্যা ৬৩৩

যনাতনের, এক নূতন ব্যাধ্যা করিলেন। ভীহার! বপিলেন,' “বিশ্বের প্রত্যেক আরণ্যক খবিগণ কর্তৃক বস্ততে সেই অদ্বিতীয় পরত্রদ্ের চিস্তনই উপাসনা! ।” উপাননাতত্বের নুতন. এইরূপে আরণ্যক খধিরা ত্রক্ষবিষয়ে গভীর টি চিন্তায় নিমগ্ন হুইলেন। তীহাদের চিত্ত সম্পূর্ণ ব্ধপে অস্তমূখি হইল। পূর্বে তাহারা বাহ্‌ প্রক্কতিতে পরর্রছ্গের প্রকাশ আরণাক কষিগণের অন্ত- দেখিতেছিলেন ; কিন্তু এখন তাহারা স্তরের রাস্তায় চিন্ময় পরব্রন্মের হিরগ্ময় কোষে এক অদ্বিতীয় চিদ্রুপি পরব্রদ্ধের প্রক্কাশ- প্রতিক্রিয়া সাক্ষাৎকার লাভ করিয়া, তাহার সততায় ডুবিয়! গুভাবে আরণ্যক ধষিরা গেলেন। গ্রতিক্রিয্না প্রভাবে তাহারা বাহির সর্বববিষয়ে বহিধিমুখ | হইতে একেবারে অন্তরে আসিয়া পড়িয়াছিলেন, স্থতরাং সকল বিষয়েই তাহারা বহির্বিমুখ হইয়া ফঈাড়াইলেন। এই আরণ্যক খষিরাই আদি উপনিষদের নিগুণত্রহ্মবাদের প্রবর্তক। বেদের ব্রাঙ্গণভাগের ব্রহ্ম এক মহাশক্তি। অগ্রি,: বায়ু, আকাশ, ্রাঙ্গণযুগে ব্রহ্গজ্ঞান ভূলোক ছ্যুলোক সর্বত্রই তিনি ব্যাপ্ত আছেন। লোগের আশঙ্কা এবং তিনি ইহাতে,আছেন, উহাতে আছেন, ব্রন্ষের এই বর্গের শ্বরপলক্ষপণের উপর জোর দেওয়ার মাত্র লক্ষণা করিলে প্রকৃতির অপণ্য বস্তর মধ্যে আবগ্কত। ব্রন্মের লুপ্ত হুইয়া যাওয়ার অতান্ত সম্ভাবনা। ব্রাঙ্গণযুগে ব্রঙ্গজ্ঞান এইরূপে লুপ্ত বিনষ্ট হওয়ার খুব আশঙ্কা ছিল। যাগযজ্াদি জটিল কর্্মকাঁগুজাল এবং উহাদের রূপক কাল্পনিক ব্যাখ্যারাশি মন্ুষাবুদ্ধিকে বিকৃত এবং ব্রহ্গজ্ঞানকে একেবারে আচ্ছন্ন করিয়] ফেলিয়াছিল; স্গতরাং ব্রহ্মজ্ঞানের পবিত্রতা রক্ষা করিবার জন্য তটস্থ লক্ষণ ছাড়িয়া ব্রদ্মের শ্বরূপলক্ষণকে জাগ্রত করা একান্ত আবশুক হুইয়! উঠিয়াছিল। স্বরপ লক্ষণের উপর জোর স্বরূপলক্ষপের উপর জোর দিতে গিয়াই ঈশ। দিতে গিয়াই আদি উপ- কেন, কঠ প্রভৃতি আদি উপনিষৎকর্তারা নি নিষদ্কত্ভারা নিও পক্ষ ব্রন্ধবাঁদী* হুইয়] দ্রাড়াইলেন। তাহারা বলিলেন, রী বর্ম বাহিরের সমস্ত বস্ত হইতে পৃথক্‌,--ইজ্জ নি দেবতা হইতে পৃথক্‌, পনেদং ষদ্দিদমুপাঁসতে*, দেহ হইতে পৃথক্‌, ভাঁবাত্বক প্লোক খাঁকিলেও আদি উপনিষদ্‌ সমুছে নিও্ডণ ভাবের এবং পরবস্তা গন সমুছে সঞ্জগ ভাবের গ্রাধান্ত লক্ষিত হয়। চর: 87

৬৩৪ '--: দাশী [৫ম ভাগ,১২শ সংখ্যা)

ইন্তিঘ় হইতে পৃথক, মন হইতেও পৃথক্‌। তিনি অশব্দ, অম্পর্শ, অরূপ, অব্যয়, অরস, অগন্ধ, অনাদি অনস্ত। তিনি সর্বাতীত, পরাৎপর, নিত্য, চিন্ময় পুরুষ. বাহিরে তাহাকে দেখিতে পাওয়া যায় না। ধ্যানযোগে আদি উপনিষদূকর্তীর। অস্তরাত্মার হিরগ্নয় কোষেই কেবল তিনি প্রকা- বেদের বান্থ ব্রহ্ম বাহ শিতহন। অস্তমূ্থ হইয়1 অন্তরের অন্তরতম স্থানে কর্ম উভয়েরই বিরোধী বাহার! তাহাকে জানিতে পারেন, তাহারাই অমরত্ব লাভ করেন। কিন্তু যাহার! বহিমু্থ-_যাহার1 কর্মের অনুসরণ করে, তাহার অন্ধকার মৃত্যুকে প্রাপ্ত হয়। এইরূপে আদি উপনিষৎকর্তার! বেদের বাহ ত্রহ্ম বাহ কর্ম উভয়েরই ঘোর প্রতিবাদ করিলেন। বণাশ্রম- ধর্মের প্রতিও তাহাদের তাদৃশ শ্রদ্ধা ছিল না। ব্রহ্মচর্য্যাশ্রম হইতে একে- ধারে সন্যাসাশরমে গ্রবেশ করাই তাহার! প্রশস্ত মনে করিতেন।

বৈদিক কর্মকাণ্ড তাহার কাল্পনিক ব্যাখ্যাদির গ্রতি বীতশ্রদ্ধ হইয়! ইরান লা আরণ্যক খধিদের হ্যায় চীর্বাকগণও তাহার পরতিক্ি্_চার্বাকদর্শন প্রতিবাদ করেন। চীর্বাকগণের অন্ত নাম লোকায়ত। লোকায়ত, অর্থাৎ যে মত পৃথিবীর অধিকাংশ লোকের মধ্যে ব্যাপ্ত,কিন্ব] লোক অর্থাৎ ইহলোঁক লইয়াই যে মত। এতিনি তবেই চার্বাকগণ প্রত্যক্ষবাদী (7১051151501 হ্তরাং . চার্বাকমতে আধুনিক প্রত্যক্ষবাদীদের স্তায় চার্বাকগপও এক" 'স্বতাবাতিরিক্ত ব্রন্ধ এবং মাত্র প্রত্যক্ষকেই প্রমাণ বলিয়। স্বীকার করেন; চামিভিরিউি না অনুমান শাব্ধ প্রমাণ শ্বীকার করেন না। চার্বা- কেরা বলেন, আমর! প্রত্যক্ষ করিতেছি স্বভাব স্বভাবের কার্য্য। সুতরাং ব্রক্ষনাষে অপর কোনও শক্তি নাই দেহাডতিরিক্ত আত্মাও প্রত্যক্ষসিন্ধ নকে, সুতরাং আত্মাও নাই। চৈতন্ত পঞ্চভূতাত্বক দেহের একটা ধর্ম 970000) আত্র। দেহেক়্ বিনাশের সঙ্গে সঙ্গে আত্মার বিনাশও জবশ্রস্ভাবী ; সৃতরাং আত্মার পরকাল জন্মান্তরপ্রাপ্তি নাই। চার্বাকের! 'ভাধর্বাকমন্তে বেদ শ্ববি-' বেদ অর্থাৎ আগ্তবাক্া স্বীকার করেন না। তাহার! রড বলেন, বেদবাক্যের মধ্যে পরম্পর বিরোধ দেখি- প্রতারক্ষগণের হারা ধাগ. তেছি। বেদে পুনকরুক্তি মিথ্যাকখন দোষও ৮» জ্ঞান প্রবর্তিত লঙ্ষিত হয়। সুতরাং বেদ অগ্রমাণা। কতক" গুপি প্রতারক, ধূর্ত ভণ্ড অর্থ লাভের লালনায়, স্বর্ণ নরকাদির ভক্ক

ডিসেম্বর; ১৮৯৬] ভারতীয়-ব্রন্মবিদ্যা ৬৩৫.

দেখাইয়া লোকদিগকে যাগষজ্ঞাদিতে প্রবৃত্ত করিয়াছিল। তাহাদের অতি- সমন্ত বৈদক কর্প সন্ধি বুঝিতে ন! পারিয়া উত্তরকালীন লোঁকের। খা সমস্ত কর্ধের অনুষ্ঠান করাতে প্রথ। বরুকা, হুইতে জনসমাজে চলিয়। আসতেছে। কিন্তু অপ্রত্যক্ষ স্বর্গমূখ নরকদণড বর্গ, মরক মিথ্যা-আত্য- উভয়ই মিথ্য/। আত্যস্তিক শরহিক সুখই প্রতাক্ষ স্তিক এহিক খই বর্গ, ' স্বর্গ, ছুঃংখ প্রত্যক্ষ নরক এবং প্রত্যক্ষ রাজদওই ঘখহ নরক এবং রাজ. একমাত্র দণ্ড। পারলৌকিক সুখের আশায় ধর্শ- দণ্ডই একমাত্র দণ্ড | সাধন দ্বারা আত্মাকে ক্লেশ দেওয়া মূর্খতার কার্ধ্য। ধহিক সুখভোগই পরম পুরুষার্থ। কিন্ত সুখের অনুযঙ্গি অবশ্যস্তাৰি ই্হিক হৃখভোগই পরম ছুঃখ